Search

HOME / কেন আপনি প্রস্রাব এর বেগ নিয়ন্ত্রণ করবেন না ?

কেন আপনি প্রস্রাব এর বেগ নিয়ন্ত্রণ করবেন না ?

Tanuja Acharya | ডিসেম্বর 19, 2018

যখন আপনার প্রসাব এর বেগ আসবে  , তখন আপনাকে যেতেই হবে! যখন আপনার মূত্রনালি অর্ধেক ভরে যাবে মূত্র তে তখন আপনার মস্তিস্ক তে সংকেত যাবে । তখন মস্তিস্ক আমাদের নির্দেশ দেবে প্রস্রাব করতে যেতে, আর মূত্রনালি কে জানাবে কিছুক্ষণ মূত্র নিয়ন্ত্রণ করতে ।

একটা সুস্থ মূত্রনালি ২ কাপের মতো মূত্র ধরে রাখতে পারে, যদিও প্রতিদিনের অভ্যাসে এই মূত্র আটকে রাখা মোটেই ভালো অভ্যাস না , কেন সেটা নিচে দেওয়া আছে ঃ

 

১। বেদনাদায়ক

যে সব ব্যক্তিরা প্রতিদিনের অভ্যাসে প্রস্রাব চেপে রাখেন তাঁরা কিডনি আর মূত্রনালী তে বেদনা অনুভব করেন । এমন কিছু ক্ষেত্রে যখন কোনও ব্যক্তি প্রস্রাব করার ইচ্ছা অনুভব করেন তখন তারা প্রস্রাব করতে যন্ত্রণা অনুভব করেন।

 

২। মূত্রনালীর সংক্রমণ -Urinary Tract Infections (UTIs)

মুত্রনালির সংক্রমণ তখন হয় যখন জীবাণু মূত্রনালীর কোষে রয়ে যায়, প্রস্রাব চেপে রাখার অভ্যাস এই জীবাণু গুলো কে দ্বিগুণ আকারে করে দেয় আর পুরো মূত্রনালি তে ছড়িয়ে পরে যার ফলে মুত্রনালির সংক্রমণ দেখা দেয়। চিকিৎসক দের মতে আপনার যদি বার বার এই সংক্রমণ হওয়ার প্রবণতা থাকে , তাহলে আপনার প্রস্রাব চেপে রাখা একদম উচিত না ।

কিছু সাধারণ লক্ষন মুত্রনালির সংক্রমনের

  • জ্বালা এবং যন্ত্রণাদায়ক অনুভূতি প্রস্রাব করার সময়
  • তল পেটে ব্যাথা
  • বার বার অনুভূতি মূত্রনালি খালি করার
  • বাজে আর কড়া গন্ধ
  • অস্পষ্ট , হালকা রঙে বা ঘন রঙের প্রস্রাব
  • প্রস্রাবে রক্ত

 

৩। প্রসারিত মূত্রনালি

প্রতিদিনের অভ্যাসে প্রস্রাব চেপে রাখা অনেক দিন ধরে , যা আপনার মুত্রনালির পেশী কে প্রসারিত করে । একবার প্রসারিত হয়ে গালে , মুত্রনালির পক্ষে খুব কঠিন নিয়ন্ত্রণ আর প্রাকৃতিকভাবে প্রস্রাব মুক্ত করা । খুব চরম ক্ষেত্রে কিছু অতিরিক্ত ব্যবস্থা যেমন মুত্রনিস্কাশন যন্ত্র ব্যবহার করা হয় ।

৪। সমতল  পেলভিক পেশী তে ক্ষতি

প্রস্রাব চেপে রাখলে সমতল পেলভিক পেশীতে ক্ষতি সৃষ্টি করে , যে পেশীটা সব থেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হয় তা হল ইউরিয়াথ্রাল স্পিঙ্কার । ইউরিয়াথ্রাল স্পিঙ্কার মূত্রনালি কে বন্ধ রাখে মূত্র ফাঁস না হয়ে যায়। এই পেশী ক্ষতি হলে প্রস্রাব চেপে রাখা দুষ্কর হয়ে যাবে যেমন – অনিচ্ছাকৃত প্রস্রাব বেরিয়ে আসা । যাইহোক কেজেল অনুশীলন ( পেলভিক সমতল অনুশীলন ) যা পেশীকে প্রসারিত করে , অনিচ্ছাকৃত মূত্র কে নিয়ন্ত্রণ করে আর পেশীর ক্ষতি কে সারিয়ে তোলে ।

 

৫। কিডনি তে পাথর

মূত্র তে আছে খনিজ পদার্থ যেমন ইউরিক অ্যাসিড আর ক্যালসিয়াম অক্সালেট । যে সব ব্যক্তিদের উচ্চ খনিজ পদার্থ আছে মূত্র তে বা পূর্ব ইতিহাস আছে কিডনি তে  পাথর হওয়ার , তাহলে তাদের বেশি প্রবণতা থাকে কিডনি তে পাথর হওয়ার যদি তারা প্রস্রাব চেপে রাখেন । এই প্রভাব সত্ত্বেও , কখনও এমন হয় আপনি পরিষ্কার প্রসাবাগার পাচ্ছেন না প্রস্রাব করার , আপনার কাছে আর কোনও উপায় নেই প্রস্রাব নিয়ন্ত্রণ করা ছাড়া , তাহলে কি ভাবে করবেন তার কিছু উপায় ।

  • নিজেকে কাজে ব্যাস্ত রাখুন যা আপনার মস্তিস্ক কে ব্যাস্ত রাখবে , যেমন কোনও ধাঁধা বা খেলায়
  • গান শুনুন
  • যদি আপনি বসে থাকেন তাহলে সেই ভাবে বসে থাকুন
  • বই পড়ুন
  • সামাজিক মিডিয়া তে ব্যাস্ত থাকুন
  • গরম কিছু পান করার মাধ্যমে নিজেকে গরম রাখুন

Sources: Everyday Health, Healthline, Medical News Today, Pampers, Time Magazine,  Verywell Health